1. dainiksurjodoy24@gmail.com : admin2020 : TOWHID AHAMMED REZA
  2. editor@surjodoy.com : Daily Surjodoy : Daily Surjodoy
দুর্নীতি-অনিয়মের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থানে ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস
বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১০:১১ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
র‍্যাবের নতুন মহাপরিচালক ব্যারিস্টার হারুন অর রশিদ ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে মৃদু ভূমিকম্প সাতকানিয়ায় ১৭ টাকার জন্য যুবককে খুন! রুস্তমপুর হাটে পশু ক্রয়-বিক্রয়ে অনিয়ম, অতিরিক্ত ইজারার বলি সাধারণ জনগন ব্যাপক অনিয়মের মাধ্যমে এমপিও ভুক্ত হলেন কাজেম আলী স্কুল এন্ড কলেজের ৩ শিক্ষক বিশ্বে শান্তি নিশ্চিত করা এখন আগের চেয়ে অনেক কঠিন :শেখ হাসিনা তৃতীয় ধাপে দেশের ৮৭ উপজেলায় ভোটগ্রহণ চলছে ১ জুলাই থেকে পানির দাম ১০ শতাংশ বাড়ছে ওয়াসা উপজেলা নির্বাচন : পটিয়ায় দুই ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া কুমিল্লায় অটোরিকশা ছিনতাইকারী চক্রের ৫ সদস্য গ্রেফতার

দুর্নীতি-অনিয়মের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থানে ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৩০ মে, ২০২০, ৫.৫২ পিএম
  • ২৭৪ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: দায়িত্ব নেওয়ার পরপরই দুর্নীতি-অনিয়মের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থান নিতে দেখা যাচ্ছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসকে। ইতোমধ্যে শীর্ষ পর্যায়ের বেশ কয়েকজন কর্মকর্তাকে চাকরিচ্যুত করার মাধ্যমে অনেকটাই ‘হার্ডলাইন’ অবস্থানের জানান দিচ্ছেন তিনি। আর এতে বেশ তটস্থ অবস্থায় আছেন ডিএসসিসির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

গত ১ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত ডিএসসিসির নির্বাচনে জয়ী হন শেখ ফজলে নূর তাপস। গেল ১৬ মে আনুষ্ঠানিকভাবে ঢাকা দক্ষিণের নগর পিতার দায়িত্ব নেন তিনি। সেদিনই এক সংবাদ সম্মেলনে দুর্নীতি ও অনিময়ের বিরুদ্ধে নিজের কঠোর অবস্থানের ঘোষণা দেন ডিএসসিসি মেয়র।

দায়িত্ব গ্রহণ পরবর্তী ওই সংবাদ সম্মেলনে তাপস বলেন, ঢাকাবাসীর জন্য সঠিক সিদ্ধান্ত নেবো। আর এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও বাস্তবায়নে কোনো বাধা এলে তা মানা হবে না। ঢাকাবাসীর কল্যাণেই আমি কাজ করবো।

এরপরের দিন অর্থ্যাৎ ১৭ মে সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন বিভাগের প্রধান ও আঞ্চলিক নির্বাহী প্রধানদের সঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে মতবিনিময় করেন নতুন মেয়র। সেই সভায়ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সততা ও আন্তরিকতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেন তাপস।

তিনি বলেন, দুর্নীতি ও দায়িত্ব পালনে কোনোরূপ শৈথিল্য বরদাশত করা হবে না। এ ধরনের কোনো কিছু নজরে আসার সঙ্গে সঙ্গেই কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যত বড় কর্মকর্তাই হোক কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না। এজন্য যদি কাউকে বিদায় দিতে হয় তাতেও আমি পিছু পা হবো না।

সেদিন সন্ধ্যায়ই সিটি করপোরেশনের শীর্ষ পর্যায়ের দুই কর্মকর্তাকে চাকরিচ্যুত করে বেশ আলোড়ন তৈরি করেন তাপস। ডিএসসিসির প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা ইউসুফ আলী সরদার ও অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মদ আসাদুজ্জামানকে চাকরিচ্যুত করেন তিনি। কারণ দর্শানো, তদন্ত কমিটি গঠন, সাময়িক অব্যাহতির মতো বিভিন্ন কালক্ষেপনীয় পদক্ষেপ বলয়ের বাইরে গিয়ে ‘ডিরেক্ট ডিসিশন’ এর এমন ঘটনা ডিএসসিসি তো বটেই বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের জন্যও বেশ বিরল।

এর রেশ কাটতে না কাটতেই তিন দিনের মাথায় চাকরিচ্যুত হন আরও এক কর্মকর্তা। এবার চাকরি হারান রাজস্ব বিভাগের ‘বাজার সার্কেল-৩’ এর কর্মকর্তা আতাহার আলী খান। সে সময় ডিএসসিসির নগর পরিকল্পনা বিভাগে সংযুক্ত ছিলেন আতাহার আলী।

তাপস বলেন, একটি কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে আমি দায়িত্ব নিয়েছি। আমরা যে ঢাকা গড়ে তুলতে চাই তার একটি দিক হলো সুশাসিত ঢাকা। সেই সুশাসিত ঢাকা গড়ে তুলতে গিয়ে আমরা দেখেছি যে, প্রধানমন্ত্রী উন্নয়নের জন্য টাকা দিচ্ছেন কিন্তু দুর্নীতির কারণে উন্নয়ন হচ্ছে না। উইপোকারা সরকারের টাকা, প্রকল্পের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। সেদিক বিবেচনায় আমার নির্বাচনী ইশতেহারে বলেছিলাম যে, দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে কোনো উইপোকার জায়গা আমি রাখবো না। আমি বলেছিলাম দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নেবো। তারই প্রতিফলন ঘটেছে আমার সিদ্ধান্তের মাধ্যমে।

তিনি বলেন, যাদের অপসারণ করেছি তাদের বিরুদ্ধে দীর্ঘদিনের অভিযোগ, ব্যাপক অনিয়মসহ বিভিন্ন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এটা চলমান থাকবে। এটা কোনো ব্যক্তি কেন্দ্রিক না। যেখানেই দুর্নীতি, যেখানেই সরকারের অর্থের অপচয় হবে, যেখানেই গাফিলতি-অবহেলা থাকবে সেখানেই আমরা কঠিন ব্যবস্থা নেবো। সিটি করপোরেশনকে তার ঐতিহ্যের জায়গায় নিয়ে যেতে হলে, নিজের পায়ে দাঁড়াতে হলে উন্নয়নের পাশাপাশি দুর্নীতিবিরোধী অভিযান চালিয়ে যেতে হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Comments are closed.

© All rights reserved  2020 Daily Surjodoy
Theme Customized BY CreativeNews