1. dailysurjodoy24@gmail.com : admin2020 : TOWHID AHAMMED REZA
  2. editor@dailysurjodoy.com : Daily Surjodoy : Daily Surjodoy
  3. towhid472@gmail.com : Towhid Ahmmed Rezas : Towhid Ahmmed Rezas
সরকারী ঘর পেলে সুখে দিন কাটাব প্রতিবন্ধী নমিতা রানীর আকুতি
মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২১, ০৪:০৬ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
ধর্মঘট প্রত্যাহার, সারা দেশে নৌচলাচল শুরু সরকার চসিক নির্বাচনে কোনো হস্তক্ষেপ করবে না: ওবায়দুল কাদের কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপারকে সতর্ক করলেন হাইকোর্ট পারিবারিক কলহের জেড় ও বন্ধুদের সঙ্গে মজার করে’ কাপ্তাইয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে ২ যুবকের আত্মহত্যা রংপুরে ১৩ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে ধর্ষকের যাবজ্জীবন চট্টগ্রাম নির্বাচন-নগরীর ৭৩৫টি কেন্দ্রে চলছে মক ভোটিং বৈষম্য -অসমতা ও দুর্বৃত্তায়নই দারিদ্র্যের প্রধান উৎস’ রংপুরে এক ছাত্রী নিবাস থেকে ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার জকিগঞ্জে নৌকার পক্ষে মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিনের গণসংযোগ সাভারে দরিদ্র,অসহায়,ছিন্নমুল,হতদরিদ্র ও শীতার্ত ব্যক্তিদের মাঝে কম্বল বিতরণ

সরকারী ঘর পেলে সুখে দিন কাটাব প্রতিবন্ধী নমিতা রানীর আকুতি

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০২১, ২.১৫ পিএম
  • ১৩ বার পঠিত
রেখা মনি, নিজস্ব প্রতিবেদক
পাঁচ বছর ধরে সরকারি খাসজমিতে মানবেতর জীবনযাপন ।
আমার স্বামী একজন দিনমজুর। দিনমজুরি করে আমার চিকিৎসা খরচ চালান। এই দিনমজুরি টাকা দিয়ে ওষুধ কিনব, নাকি ঘর ঠিক করব, না সংসার চালাব? সরকারের কাছে আমার আবেদন যেন সরকার আমাকে একটা ঘর দেয়। এক ছেলে ও এক মেয়েকে নিয়ে যেন ওই ঘরে সুখে-শান্তিতে দিন কাটাতে পারি। এভাবেই কষ্টের কথাগুলো বলছিলেন শারীরিক প্রতিবন্ধী নমিতা রানী (২৮)। তার স্বামীর নাম সাধন চন্দ্র (৩৫)।
নিজস্ব জমি না থাকায় পাঁচ বছর ধরে সরকারি খাসজমিতে মানবেতর জীবনযাপন করছেন এই প্রতিবন্ধী দম্পতি। নমিতা রানীর একটি হাত ও একটি পা বিকলাঙ্গ। তারপরও এখন পর্যন্ত ভাগ্যে জোটেনি প্রতিবন্ধী ভাতা, ভিজিডি কার্ড কিংবা মাথা গোঁজার মতো একটা সরকারি ঘর। অভাবের কারণে অনেক সময় অভুক্ত থাকতে হয়।
লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার সিন্দুর্না ইউনিয়নের পুর্ব সিন্দুর্না গ্রামের খাসজমিতে বসবাস করেন দিনমজুর সাধন চন্দ্র ও তার শারীরিক প্রতিবন্ধী স্ত্রী নমিতা রানী (২৮)। এই দম্পতির এক ছেলে নয়ন চন্দ্র ও এক মেয়ে বৃষ্টিকে নিয়ে তাদের অভাবের সংসার। ছেলে নয়ন পঞ্চম শ্রেণিতে ও মেয়ে বৃষ্টি তৃতীয় শ্রেণিতে পড়াশোনা করছে।
শুধু খাওয়ার কষ্টই নয়, নমিতা বুকের ভালভ ও ছেলে নয়ন হার্টের সমস্যায় ভুগছেন। প্রতি সপ্তহে তাদের জন্য ওষুধ কিনতে লাগে প্রায় সাড়ে ৭শত টাকা। তাদের চিকিৎসা করতে সবে শেষ করছেন সাধন চন্দ্র।
ভূমিহীন এই পরিবারে থাকার একটি ঘর গত ৬ মাস আগে ঝড় ও ভারীবৃষ্টিতে ভেঙে পড়ে। সেই থেকে ভাঙা টিনের ঘরে দুই সন্তানকে নিয়ে ঠান্ডায় বসবাস করছের এই দম্পতি। গত চার মাস আগে হাতীবান্ধা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) দেখা করে ঢেউটিনের জন্য আবেদন দিয়েও আজ পর্যন্ত টিন পাননি।
সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, কনকনে শীত আর ঠান্ডা বাতাসে ভাঙা টিনের ঘরে প্লাস্টিক মুড়িয়ে ছেলেমেয়েকে নিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছেন এই দম্পতি। ঘরের সব টিন জঙ ধরে ভেঙে পড়েছে। ঘরে থাকার কোনো পরিবেশ নেই।
সাধন চন্দ্র বলেন, ‘আমি দীর্ঘদিন ধরে এই খাসজমিতে বসবাস করছি। স্ত্রী ও ছেলের চিকিৎসা করে সব শেষ করছি। ঘর ভেঙে পড়েছে। ঘরটি তোলার কোনো উপায় নেই। আমি সরকারে কাছে একটি ঘর চাই। ইউএনওর কাছে টিনের জন্য দরখাস্ত দিয়েছি। ইউএনও বলেছেন, টিন এলে পাবেন। কিন্তু চার মাসেও টিন পাইনি। কেউ যদি আমার ঘরটি টিন দিয়ে ঠিক করে দিতে, তাহলে ভগবানের কাজে আশীর্বাদ করতাম।’
ওই গ্রামের প্রতিবেশী আবু সাঈদ জানান, সাধান চন্দ্র একজন দিনমজুর, গরিব। তার স্ত্রী নমিতা শারীরিক প্রতিবন্ধী ও অসুস্থ। টাকা-পয়সা না থাকায় ভাঙা ঘরটিতে ছেলেমেয়ে নিয়ে রাত্রীযাপন করছেন। মুজিববর্ষ উপলক্ষে তার জন্য একটি সরকারি ঘর পাওয়া উচিত বলে মনে করি।’
সিন্দুর্না ইউনিয়ন পরিষদের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য (মেম্বার) আমিনুর রহমান জানান, সাধন চন্দ্র একজন হতদরিদ্র ব্যক্তি। তিনি সরকারি ঘর পাওয়ার যোগ্য ব্যক্তি। তবে সরকারি ঘর পাওয়ার তালিকা থেকে তিনি কেন বাদ পড়েছেন তা আমার জানা নেই।’
সিন্দুর্না ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরল আমিন বলেন, ওই পরিবারটির বিষয়ে আমার জানা নেই। তবে সরকারি ঘরের জন্য আবেদন দিলে বিষয়টি দেখা যাবে।
এ বিষয়ে হাতীবান্ধা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সামিউল আমিন বলেন, তিনি ভূমিহীন হলে বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে। তদন্তে সরকারি ঘর পাওয়ার যোগ্য হলে ঘরের ব্যবস্থা করা হবে। তিনি আরও বলেন, টিনের জন্য আবেদনপত্রগুলো জেলা প্রসাশকের কার্যালয়ে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved  2020 DailySurjodoy.Com
Theme Customized BY CreativeNews
error: National News Paper in Bangladesh!